শেরপুর

ঘুরে আসুন শেরপুর ডিসি লেক চত্ত্বর

প্রকাশ : 21 মার্চ 2019, বৃহস্পতিবার, সময় : 07:54, পঠিত 234 বার

শাহরিয়ার মিল্টন :
শেরপুর জেলা শহরের নতুন বিনোদনস্থল হয়ে উঠেছে ‘ডিসি লেক চত্ত্বর’ । যে কোন সময় এখানে পরিবার-পরিজন ও বন্ধু-বান্ধব নিয়ে কাজের ফাঁকের অবসরে ঘুরে আসতে পারেন । আড্ডার পাশাপাশি ডিসি লেকের স্বচ্ছ পানিতে ভেসে বেড়াতে পারেন প্যাডেল বোটে।  লেক পাড়ের ছায়া ঘেরা নানান প্রজাতির গাছের ছায়াতলে শীতল বাতাসে ক্ষনিকের জন্য হারিয়ে যেতে পারেন নদী ঘেরা হীমশিতল এক শান্ত গ্রামে।  
শেরপুর জেলা প্রশাসন সূত্রে জানাগেছে, জেলা কালেক্টরেট ভবন ও মসজিদের সামনের ছায়া ঘেরা চত্ত্বরটি দীর্ঘদিন যাবত অনেকটা অযত্ব ও অবহেলায় পড়েছিল। এখানে দিনের বেলা কালেক্টরেট ভবনের পাশপাশি আদালত চত্বর ও পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে বিভিন্ন কাজে আসা বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষের বিচরণ থাকলেও বসার জন্য ছিলনা পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা। তবে সন্ধ্যা হলে এখানে বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষের মল ত্যাগ ও বাজে আড্ডাবাজদের আড্ডাস্থলে পরিনত হয়েছিল। সম্প্রতি শেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন এ স্থানটিতে শহরের সর্বস্তরের জনগণের জন্য এবং জেলার বিভিন্ন সরকারী জাতীয় দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত মেলার আয়োজন করে বেশ জাকজমক করে তোলেন। এরপর তিনি সিদ্ধান্ত নেন  স্থানটিকে ঘিরে শহরবাসীকে একটু বিনোদন এবং নিজ নিজ কর্মব্যস্ততার ফাঁকে এখানে এসে সময় কাটানোর জন্য কিছু একটা করার। ইতিমধ্যে তিনি এখানে বেশ কয়েকটি মেলা এবং বাংলা বর্ষবরণসহ বিভিন্ন সরকারী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বেশ প্রশংসা অর্জন করেন। এরপর  তিনি শুরু করেন ডিসি চত্ত্বরের সৌন্দর্য বর্ধনের নানা উন্নয়ন কাজ। লেক বা গাঙিনার দক্ষিণ পাড়ে  বসার জন্য বেশ কয়েকটি বেঞ্চ তৈরী করেন । এছাড়া ভোরে ও  সন্ধ্যার পর হাটার জন্য চত্ত্বরের চারপাশ দিয়ে তৈরী করেন ওয়ার্কিং রোড। লেকের পানিতে ভেসে রেড়ানোর জন্য গজনি অবকাশ থেকে পরীক্ষামূলকভাবে আনা হয়েছে ৩টি প্যাডেল বোট। ৪ আসনের এ প্যাডেল বোটে প্রতিজন ১৫ মিনিটের জন্য ভাড়া নেওয়া হয় ২০ টাকা। তবে একসঙ্গে চারজন হলে ভাড়া নেওয়া হয় ৬০ টাকা। প্যাডেল বোট সকাল সাড়ে ৯ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত চালু থাকে।
কোন রকম প্রচার-প্রচারণা না হলেও এখানে প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শহরের বিভিন্ন পেশাজীবী মানুষ আসতে শুরু করেছেন। শহরের একেবারে প্রাণ কেন্দ্রে এমন গ্রামীণ পরিবেশে এসে অনেকই পরিবার পরিজন নিয়ে আসার চিন্তা করছেন। প্রচন্ড গরমে হাফিয়ে উঠা মানুষ  এখানে আসলে হীমশিতল বাতাসে প্রাণ জুড়াতে পারবেন।
ডিসি চত্ত্বরটিকে শিশুদের নানা বিনোদনের পাশপাশি আরো সুন্দর করে সাজাতে এবং শহরের ব্যস্ত বিভিন্ন পেশাজীবী মানুষের ব্যস্ততার ফাঁকে একটু অবসর নিয়ে মনকে সতেজ করতে নানা আয়োজনের চিন্তাভাবনা রয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন ।

প্রেরক:  শাহরিয়ার মিল্টন  , শেরপুর । মোবাইল : ০১৭১১-৬৬৪২১৭,০১৫১১-৬৬৪২১৭



সর্বশেষ


সর্বাধিক পঠিত

Music | Ringtone | Book | Slider | Newspaper | Dictionary | Typing | Free Font | Converter | BTCL | Live Tv | Flash Clock Copyright@2010-2014 turiseguide24.com. all right reserved.
Developed by i2soft Technology